Grade 3 & 4; exams held under strict rules in Dholai

ধলাই, ২১ আগষ্টঃ রবিবার সমগ্ৰ রাজ্যের বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্রের সঙ্গে ধলাই এলাকার বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্রেও যথারীতি চতুর্থ শ্রেণীর নিযুক্তির লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ধলাই বিএনএমপি উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়, দক্ষিণ ধলাইয়ের বাম বিদ্যাপীঠ হাইস্কুল, এম এ লস্কর সিনিয়র সেকেন্ডারি স্কুল, হাওয়াইথাং হাইস্কুল পরীক্ষা কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। কাটলিছড়া, হাইলাকান্দি, করিমগঞ্জ,কাটিগড়া,কালাইন সহ বহু দূর দূরান্তের পরীক্ষার্থীদের এসে পৌঁছাতে বা পরীক্ষা কেন্দ্র খুঁজতে অনেক বেগ পেতে হয়েছে। এছাড়া পরীক্ষা কেন্দ্রের বাইরে গাড়ি,বাইক, অটো পার্কিংয়ের সমস্যা যেমন ছিল তেমনি পরীক্ষার্থীদের রুমাল, মোবাইল, বাইকের চাবি, পার্স ইত্যাদি বিভিন্ন সামগ্রী রাখার কোন সুবন্দোবস্ত ছিল না। এতে ও সমস্যায় পড়তে হয়েছে অনেককেই। এদিন সকাল দশটায় পরীক্ষা কেন্দ্রের বাইরে পরীক্ষার্থীদের দীর্ঘ লাইন দেখা যায়। এডমিট সহ অন্যান্য সামগ্রী অনুসন্ধান করে ভিতরে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছিল। এতে প্রথমার্ধে কিছুটা সমস্যা হলেও সময়ের মধ্যেই সকলে ভিতরে যেতে পেরেছেন। তবে দূর দূরান্তের কিছু পরীক্ষার্থী আসতে পারেননি বলে জানা গেছে। দক্ষিণ ধলাইয়ের এম এ লস্কর সিনিয়র সেকেণ্ডারি স্কুলে সকাল সিটিংয়ে মোট পরীক্ষার্থী ৫০০ জনের মধ্যে ৪০৩ জন উপস্থিত ছিলেন এবং ৯৭ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিলেন বলে জানা গেছে। তবে এরা ঠিক কি কারণে আসেননি তাহা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
এদিকে প্রতিটি পরীক্ষা কেন্দ্রের গেটের বাইরে পুলিশের সক্রিয় ভূমিকা লক্ষ্য করা গেছে। বাম বিদ্যাপীঠ হাইস্কুলে সকাল ও বিকাল দুই সিটিংয়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। সকাল সিটিংয়ের পরীক্ষায় ৮১০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ৬৭০ জন এবং ১৪০ জন অনুপস্থিত ছিলেন। আবার বিকাল সিটিংয়ের পরীক্ষায় ৮১০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ৬৩৫ জন এবং ১৭৫ জন অনুপস্থিত ছিলেন। সকালে পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগে বাম বিদ্যাপীঠ হাইস্কুলে পরীক্ষার দায়িত্বে থাকা ইনভিজিলেটর সহ অন্যান্য কর্মীদের স্কুলে প্রবেশে বাধা দেন পুলিশ কর্মীরা। আইডেন্টি কারড দেখানো সত্ত্বেও তাদের যেতে দেওয়া হয়নি। এজন্য বার বার স্কুলের প্রধান শিক্ষক তথা সেন্টার ইনচার্জকে গেটের সামনে ছুটে আসতে হয়েছিল। এমনকি সংবাদকর্মীকেও রক্তচক্ষু দেখান জনৈক মহিলা পুলিশ কর্মী। একজন বিকলাঙ্গ পরীক্ষার্থী স্কুলের গেটের সামনে আসতেই পুলিশ তাকে আটকে দেয়। পুলিশকর্মীরাই তাকে ভিতরে নিয়ে যেতে সাহায্য করেন। পুলিশের মহানোভবতার এই দৃশ্যটা ক্যমেরা বন্দি করতে চাইলে ওই মহিলা পুলিশ কর্মী বাঁধা দেন। উল্টে এনিয়ে পুলিশ সুপারের কাছে ওই মহিলা পুলিশ কর্মী সাংবাদিকের বিরুদ্ধে নালিশ জানান। বিকাল তিনটায় বাম বিদ্যাপীঠ হাইস্কুলে ছুটে আসেন পুলিশ সুপার রমনদীপ কৌর। এসে এই প্রতিবেদককে ডেকে পাঠালেন। তবে বিষয়টি বিস্তৃত অবগত হওয়ার পর অবশ্য নিজ নিজ দায়িত্ব যথাযথভাবে পালনের পরামর্শ দিয়ে ফিরে যান তিনি। এদিকে হাওয়াইথাং হাইস্কুল পরীক্ষা কেন্দ্রে সকাল সিটিংয়ে মোট ৩৭০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৮৭ জন পরীক্ষায় অংশ নেন এবং ৮৩ জন অনুপস্থিত ছিলেন।
সব মিলিয়ে সরকারের চতুর্থ শ্রেণীর নিযুক্তি পরীক্ষা নিয়ে অনেকের মনেই ক্ষুভ রয়েছে

error: Content is protected !!